কিভাবে অলরাউন্ডার হবেন

আপনি কত জোরে দৌড়াতে পারেন তারচেয়ে বড় কথা হল আপনি কতক্ষণ দৌড়াতে পারেন। দ্রুত কাজ করার চেয়ে নির্ভুলভাবে কৃতকাজ কেই মানুষ বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে। এমন অনেকেই আছেন যারা জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে পারদর্শী। কিন্তু সারা পৃথিবীতে এমন কতজন মানুষ আছেন যারা জীবনের প্রত্যেকটি কাজেই পারদর্শিতা অর্জন করেছেন? সবাই চায় জীবনে সকল ক্ষেত্রে পারদর্শিতা অর্জন করতে বা অলরাউন্ডার হতে। তাহলে চলুন এই বিষয়টাকে জটিল না করে অলরাউন্ডার হবার বিশেষ কিছু উপায় নিয়ে কথা বলা যাক। 

১. আপনার সামর্থ্য সম্পর্কে জানুন

আপনি যদি জীবনে কোনো কিছু অর্জন করতে চান তাহলে সে ব্যাপারে কাজ শুরু করার আগে আপনার নিজের সামর্থ্যকে যাচাই করে নিতে হবে। তাছাড়া হঠাৎ করেই কোন কাজ শুরু করে সেখানে নিজেকে মানিয়ে নেওয়াটা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়বে। খুঁজে বের করুন কোথায় আপনার সমস্যা আছে। প্রয়োজনে অভিজ্ঞদের কাছ থেকে পরামর্শ নিন। 

২. লক্ষ্য  ঠিক করুন

অলরাউন্ডার হতে হলে আপনাকে সুপরিকল্পীত ভাবে এগোতে হবে। আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী লক্ষ্য ঠিক করুন। লক্ষ্য ঠিক করতে সময় নিয়ে ভাবুন কারণ সঠিক পছন্দ জীবনে অনেক বড় একটি বিষয়। আপনি লক্ষ্য ঠিক করতে যদি ভুল করে থাকেন তাহলে কখনো কাঙ্ক্ষিত সাফল্যে পৌছাতে পারবেন না।

৩. সময়ের সদ্ব্যবহার করুন

সময়ের সঠিক ব্যবহারের বিকল্প কোন পদ্ধতি নেই জীবনের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে। আপনার যদি টাইম ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে কোন ধারণা না থাকে তাহলে কোন পদ্ধতি আপনার ক্ষেত্রে কাজ করবে না। পৃথিবীতে সকল ব্যক্তিরা সফল এই কারণে যে তারা সময় ব্যবস্থাপনার দিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতেন। সকালে ঘুম থেকে দেরি করে উঠলে আপনি কখনো আপনার কাজ সময়মতো করতে পারবেন না। তাই সময়ের সঠিক ব্যবহার আপনাকে আপনার সেই লক্ষ্যে পৌঁছে দেবে যেখানে যাবার স্বপ্ন আপনি দেখেছিলেন। 

৪. সঠিক সিদ্ধান্ত নিন

আপনি যদি সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন তাহলে অন্যদের চেয়ে অন্তত দুই ধাপ এগিয়ে থাকবেন। অলরাউন্ডার হতে চাইলে আপনাকে আপনার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। আপনি যেটা করছেন সেটা সঠিক এমন বিশ্বাস আপনাকে সফলতার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে সাহায্য করবে। দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার ক্ষমতা আপনাকে অনেকের মধ্যে অন্যতম করে তুলবে। 

৫. সৃজনশীল হন

এ পৃথিবীতে প্রায় সবকিছুই বিদ্যমান। তাই আপনাকে এমন কিছু করতে হবে যা আজ পর্যন্ত কেউ করে দেখাতে পারেনি। আপনার সৃজনশীলতা আপনাকে সারা পৃথিবীর বুকে তুলে ধরতে সহযোগিতা করবে। যদি সফল মানুষদের দিকে তাকান তাহলে দেখতে পাবেন তারা তাদের সৃজনশীলতার কারণ এই পৃথিবীর বুকে স্মরণীয় হয়ে আছেন। তাই সৃজনশীলতা অলরাউন্ডার হবার পথে অন্যতম সহায়ক একটি গুণ। 

৬. নিজেকে আপটুডেট রাখুন

প্রতিনিয়ত এই সারা পৃথিবীতে ঘটছে বিভিন্ন ঘটনা। তাই যখনই আপনি কারো সাথে কোন মতামত শেয়ার করতে যাবেন তখন পৃথিবীর ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোর রেফারেন্স দিন। এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার ক্ষেত্রেও এই বিষয়গুলি মাথায় রেখে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন। দেখবেন আপনি খুব সহজেই অতি আধুনিক পৃথিবীর সাথে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছেন। আর নিজেকে আপডেট রাখতে হলে নিয়মিত সংবাদপত্র পড়ুন, সঠিকভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করুন, বিভিন্ন সাংবাদিকদের মতামত এবং খবরা-খবর সম্পর্কে জানুন। 

৭. সবার সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন

আপনি ততক্ষণ পর্যন্ত কোন কিছু শিখতে পারবেন না যতক্ষন না আপনার প্রতিবেশী বা বন্ধু-বান্ধবের সাথে যোগাযোগ করবেন। অলরাউন্ডার হতে হলে অবশ্যই অন্যদের মতামতকে প্রাধান্য দিতে হবে এবং তাদের যুক্তি তর্ক শুনতে হবে। তবেই আপনি আপনার নিজের অবস্থান তাদের মতামতের উপর ভিত্তি করে শক্ত করতে সক্ষম হবেন। তাই আপনার বন্ধু-বান্ধব বা সহকর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন। কারণ নিজে নিজে কখনো অলরাউন্ডার হতে পারবেন না। আপনি অলরাউন্ডার হবেন মানুষের মনে, নিজের মনে নয়। 

৮. শারীরিকভাবে সুস্থ থাকুন

অলরাউন্ডার হতে গেলে আপনাকে মানসিক স্বচ্ছতার পাশাপাশি শারীরিকভাবেও শক্ত সামর্থ্য থাকতে হবে। আমাদের মাথায় রাখতে হবে যে স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। তাই আপনি যদি শারীরিকভাবে অসুখী থাকেন তাহলে অন্যান্য বিষয়ে সফলতা অর্জন করার কথা কখনও আপনার মাথায় আসবেই না। 

৯. মানুষের সাথে ভাল আচরন করুন

কখনো যদি আপনি অলরাউন্ডার হয়ে যান তাহলে আপনার নিজের মনে কিন্তু আপনার সম্পর্কে তেমন পরিবর্তিত কোন ধারণা জন্মাবে না। আপনার মনে হবে যে আরে আমি তো আমি আছি। কিন্তু পৃথিবীর মানুষদের কাছে আপনি অলরাউন্ডার। তাই এই মানুষগুলো যদি আপনার আশে পাশে না থাকে তাহলে আপনি কোনদিনও অলরাউন্ডার হতে পারবেন না। সুতরাং মানুষের সাথে অবশ্যই ভালো আচরণ করুন। অন্যথায় মানুষ কখনো আপনার পাশে থাকবে না।

১০. নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখুন

নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করা অত্যন্ত কঠিন একটি কাজ। সেটা যদি হয় বিরূপ পরিস্থিতিতে তাহলে প্রায় অসম্ভব। কিন্তু আপনার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে গেলে নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ আনা অপরিহার্য। তাই বিভিন্ন পরিস্থিতি অনুযায়ী নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখুন। দেখবেন এর সুফল নিজের মধ্যে না পেলেও অনেক পরিস্থিতিতে আপনাকে সম্মানের আসনে তুলে দেবে। 

১১. শিখতে থাকুন

জীবনে শেখার কোন শেষ নেই। আপনি যত শিখবেন নিজেকে ততবেশি অগ্রগতির পথে নিয়ে যেতে পারবেন। পৃথিবীর কোন মানুষই সবজান্তা নয়। তাই শিক্ষা নেওয়া কখনো বন্ধ না করে চালিয়ে যান। এই শিক্ষাই আপনার অবস্থান উপর থেকে উপরে নিয়ে যেতে আপনাকে সহযোগিতা করবে। 

যেখানে মানুষ বিশেষ কোনো বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করতেই হিমশিম খেয়ে যায় সেখানে অলরাউন্ডার হওয়া অনেক কঠিন একটা ব্যাপার। তবে আশাকরি উপরের বিষয় গুলি সঠিকভাবে আপনার জীবনে প্রতিফলন ঘটাতে পারলে আপনার অলরাউন্ডার হওয়া কেউ কখনো আটকাতে পারবেনা। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here