সফল যদি হতে চাও – আর্টিকেলটি পড়ে নাও

তুমি সফল যদি হতে চাও
সফল যদি হতে চাও - আর্টিকেলটি পড়ে নাও

জীবনে সফল যদি হতে চাও তাহলে তোমাকে কিছু নিয়ম মানতে হবে এবং নিজেকে সেভাবে সংশোধন করে নিতে হবে। এবার সেগুলো জানাচ্ছেন লেখক তারেকুর রহমান।

সফল হতে গেলে যে কয়েটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

  • লক্ষ্য স্থির করা
  • অন্যের কথায় কান না দেয়া
  • হতাশ না হওয়া
  • ইতিবাচক ধারণা পোষণ করুন
  • ভুল থেকে দূরে থাকা
  • অতি আত্মতৃপ্ত না হওয়া
  • বাস্তবতা মেনে নেওয়া।

লক্ষ্য স্থির করা: সফলতার প্রধান বা মূল কাজ হলো লক্ষ্য স্থির করা। আপনি কি করতে চান বা কী হতে চান তার জন্য একটা লক্ষ্য ঠিক করতে হবে। এলোমেলো না ভেবে আপনার আকাঙ্ক্ষাকে মূল্যায়ন করুন। আপনার লালিত স্বপ্ন  কী? কিংবা আপনার Goal বা লক্ষ্য কী হবে তা আগেই নির্ধারণ করতে হবে। কয়েকদিন ভাবলেন এটা করবেন, আবার কিছুদিন পর ভাবলেন অন্য আরেকটা করবেন এরকম বিচ্ছিন্ন চিন্তা না করে একটা নির্দিষ্ট গন্তব্য ঠিক করবেন। যে লক্ষ্য স্থির করবেন তাতে অটুট থাকবেন।

অন্যের কথায় কান না দেয়া: আপনার লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে নানা জনে নানা কথা বলবে। আপনি এসবে মন না দিয়ে নিজের মেধা, বুদ্ধি দিয়ে কাজ করবেন। আপনার জীবনের লক্ষ্য ও স্বপ্ন অন্যের হাতে দিবেননা। প্রয়োজনে কারো কাছ থেকে কিছু পরামর্শ নিতে পারেন। কিন্তু অন্যের কথার উপর ভর করে লক্ষ্য স্থির করবেন না।

হতাশ না হওয়া: সফল হতে গেলে বাধা আসবেই। পৃথিবীতে যারা সফল হয়েছে তাদের জীবনেও বাধা এসেছে। সে বাধাকে জয় করে তারা সামনে এগিয়ে গিয়েছে বলেই তারা সফল। তাই কোন কাজে বাধা, বিপত্তি আসলে কিংবা কোন অসফলতা আসলে তাতে হতাশ হওয়ার দরকার নাই। ধৈর্য ধরুন। কারণ কথায় আছে, ধৈর্যের ফল মিষ্টি। সাময়িক অসফলতায় থমকে দাঁড়ালে চূড়ান্ত পরাজয়বরন করতে হবে। সফল যদি হতে চাও তাহলে তোমার হতাশ হওয়া যাবে না।

ইতিবাচক ধারণা পোষণ করুন: সফল হতে হলে অবশ্যই আপনাকে ইতিবাচক চিন্তা করতে হবে। নেতিবাচক চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন। আমি পারবো না, আমাকে দিয়ে হবেনা, আমার এটা নাই, ওটা নাই, এসব ধারণা থেকে দূরে থাকুন। সফল যদি হতে চাও তাহলে আমাকে দিয়েই হবে এই চিন্তাটা সবসময় মাথায় রাখুন। দেখবেন আপনি এক সময় সফল হবেনই।

ভুল থেকে দূরে থাকা: কাজের মাঝে ভুল পেলে তা শুধরে নিতে হবে। একই ভুল বারবার না করা। আগামীতে যেন ভুল না হয় তার সংকল্প করতে হবে। ভুল গুলো চিহ্নিত করে সেগুলো শুধরে নিলে সফলতার পথে আপনি আরো একধাপ এগিয়ে যাবেন।

অতি আত্মতৃপ্ত না হওয়া: কোন কাজে প্রাথমিকভাবে সফল হলে আত্মতৃপ্তি চলে আসলে পরবর্তী কাজগুলো ঠিকমতো হবেনা। অতি আত্মতৃপ্তি সফলতার পথে অন্যতম একটি বাধা। কোন কাজ সম্পাদন করে নিজেকে জাহির করার দরকার নাই। চূড়ান্ত সফলতার আগে একাগ্রতার সাথে কাজ করে যান।

বাস্তবতা মেনে নেওয়া: কাজের মধ্যে নানান রকম সমস্যা হবে। ধরুন আপনি বিশাল একটা পরিকল্পনা নিয়ে এগুলেন হঠাৎ বন্যায় আপনার সব পরিকল্পনা বরবাদ করে দিয়েছে। এ সময়ে আপনাকে হতাশ না হয়ে বাস্তবতাকে মেনে নিতে হবে। আবার দেখা গেল আপনার চলার পথে আপনি কাছের মানুষদেরও সহযোগিতা পাচ্ছেন না। ফলে আপনি একা হয়ে গেছেন। এই একাকীত্ব কে জয় করতে হবে। আর এ ধরনের পরিস্থিতি মেনে নিতে হবে। কীভাবে এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা  করা যায় সে পথ বের করতে হবে। তুমি সফল যদি হতে চাও তাহলে তোমাকে এই বিষয়গুলো ভালো করে খেয়াল রাখতে হবে। তবে সফলতা আসবে আপনার দোড় গোড়ায়।

কিভাবে জীবনের লক্ষ্য অর্জনে সফল হবেন? জানতে পড়ুন

Feature Image:radiofacts.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here